Humayun Ahmed Quotes – হুমায়ুন আহমেদ উক্তি

Humayun Ahmed Quotes: Humayun Ahmed was a Bangladeshi writer, dramatist, screenwriter, filmmaker, songwriter, scholar, and lecturer. His breakthrough was his debut novel Nondito Noroke published in 1972.

Humayun Ahmed Quotes

হুমায়ুন আহমেদ উক্তি

Below I shared TOP Quotes of Humayun Ahmed:

প্রথম শ্রেণীর চামচা হচ্ছে যারা স্বার্থ সিদ্ধির জন্যে চামচার ভাব ধরে থাকে।
আর তৃতীয় শ্রেণীর চামচা হচ্ছে তারাই যাদের জন্মই হয়েছে চামচা হিসোবে

লাজুক ধরনের মানুষ বেশীর ভাগ সময়ই মনের কথা বলতে পারেনা।
মনের কথা হড়বড় করে বলতে পারে শুধু মাত্র পাগলরাই।
পাগলরা মনে হয় সেই কারণেই সুখী।

যত্ন করে কাঁদানোর জন্য খুব আপন মানুষগুলোই যথেষ্ট

লাজুক ধরনের মানুষ বেশীর ভাগ সময়ই মনের কথা বলতে পারেনা, মনের কথা হড়বড় করে বলতে পারে শুধু মাত্র পাগলরাই । পাগলরা মনে হয় সেই কারণেই সুখী

মেয়েরা গোছানো মানুষ পছন্দ করে না, মেয়েরা পছন্দ করে অগোছালো মানুষ

ভালবাসাবাসির জন্যে অনন্তকালের প্রয়োজন নেই, একটি মুহূর্তই যথেষ্ট

দরিদ্র পুরুষদের প্রতি মেয়েদের একপ্রকার মায়া জন্মে যায়,আর এই মায়া থেকে জন্মায় ভালোবাসা

সারা জীবন পাশাপাশি থেকেও এক সময় একজন অন্যজনকে চিনতে পারে না।
আবার এমনও হয়, এক পলকের দেখায় একে অন্যকে চিনে ফেলে

আমি আমার নিজের দেশ নিয়ে অসম্ভব রকম আশাবাদী৷
আমাকে যদি একশোবার জন্মাবার সুযোগ দেয়া হয় আমি একশোবার এই দেশেই জন্মাতে চাইব৷
এই দেশের বৃষ্টিতে ভিজতে চাইব৷ এই দেশের বাঁশবাগানে জোছনা দেখতে চাইব

ভালবাসার মানুষের সাথে বিয়ে না হওয়াটাই বোধ হয় ভাল।বিয়ে হলে মানুষটা থাকে ভালবাসা থাকে না।আর যদি বিয়ে না হয় তাহলে হয়ত বা ভালবাসাটা থাকে,শুধু মানুষটাই থাকে না। মানুষ এবং ভালবাসা এই দুয়ের মধ্যে ভালবাসাই হয়ত বেশি প্রিয়।

যে মানব সন্তান ক্ষুদ্র কামনা জয় করতে পারে সে বৃহৎ কামনাও জয় করতে পারে।

হুট করে প্রেম হয় কনজারভেটিভ ফ্যামিলিগুলোতে।
ঐ সব ফ্যামিলির মেয়েরা পুরুষদের সঙ্গে মিশতে পারে না,
হঠাৎ যদি সুযোগ ঘটে যায়- তাহলেই বড়শিতে আটকে গেল

বিরক্তিকর কোনো মানুষ ফ্রড হতে পারে না, পৃথিবীতে ফ্রড মাত্রই ইন্টারেস্টিং ক্যারেক্টার হয়

ভালবাসাবাসির ব্যাপারটা হাততালির মতো, দুটা হাত লাগে । এক হাতে তালি বাজে না, অর্থাৎ একজনের ভালবাসায় হয় না

যুদ্ধ এবং প্রেমে কোনো কিছু পরিকল্পনা মতো হয় না

ভালবাসাবাসির ব্যাপারটা হাততালির মতো, দুটা হাত লাগে । এক হাতে তালি বাজে না, অর্থাৎ একজনের ভালবাসায় হয় না

হাসি সবসময় সুখের কারণ বোঝায় না, মাঝে মাঝে এটাও বোঝায় যে আপনি কতটা বেদনা লুকাতে পারেন

সবাই তোমাকে কষ্ট দেবে, কিন্ত তোমাকে এমন একজনকে খুঁজে নিতে হবে যার দেওয়া কষ্ট তুমি সহ্য করতে পারবে

ভালোবাসা ও ঘৃনা দুটাই মানুষের চোখে লেখা থাকে

যখন মানুষের খুব প্রিয় কেউ তাকে অপছন্দ, অবহেলা কিংবা ঘৃণা করে তখন প্রথম প্রথম মানুষ খুব কষ্ট পায় এবং চায় যে সব ঠিক হয়ে যাক । কিছুদিন পর সে সেই প্রিয় ব্যক্তিকে ছাড়া থাকতে শিখে যায়। আর অনেকদিন পরে সে আগের চেয়েও অনেকবেশী খুশি থাকে যখন সে বুঝতে পারে যে কারো ভালোবাসায় জীবনে অনেক কিছুই আসে যায় কিন্তু কারো অবহেলায় সত্যিই কিছু আসে যায় না

অধিকাংশ মানুষ কল্পনায় সুন্দর অথবা সুন্দর দূর থেকে । কাছে এলেই আকর্ষণ কমে যায় । মানুষও একই । কারো সম্পর্কে যত কম জানা যায়, সে তত ভালো মানুষ

অল্প কয়দিনের জন্য আমরা এই পৃথিবীতে এসেছি। এখানে আমরা সবাই নফর মুনিব কেউ না

বাস্তবতা এতই কঠিন যে কখনও কখনও বুকের ভিতর গড়ে তোলা বিন্দু বিন্দু ভালোবাসাও অসহায় হয়ে পড়ে

শিকল দিয়ে কাউকেই বেঁধে রাখা হয় না । তারপরেও সব মানুষই কোনও – না – কোনও সময় অনুভব করে তার হাত – পায়ে কঠিন শিকল । শিকল ভাঙতে গিয়ে সংসার – বিরাগী গভীর রাতে গৃহত্যাগ করে । ভাবে ,মুক্তি পাওয়া গেল । দশতলা বাড়ির ছাদ থেকে গৃহী মানুষ লাফিয়ে পরে ফুটপাতে । এরা ক্ষণিকের জন্য শিকল ভাঙার তৃপ্তি পায় ।

কখনো কখনো তোমার মুখটা বন্ধ রাখতে হবে । গর্বিত মাথাটা নত করতে হবে এবং স্বীকার করে নিতে হবে যে তুমি ভুল । এর অর্থ তুমি পরাজিত নও, এর অর্থ তুমি পরিণত এবং শেষ বেলায় জয়ের হাসিটা হাসার জন্য ত্যাগ স্বীকারে দৃঢ় প্রতিজ্ঞ

কেও কারও মত হতে পারে না। সবাই হয় তার নিজের মত। তুমি হাজার চেষ্টা করেও তোমার চাচার বা বাবার মত হতে পারবে না। সব মানুষই আলাদা।

তরুণী মেয়েদের হঠাৎ আসা আবেগ হঠাৎ চলে যায়, আবেগকে বাতাস না দিলেই হলো । আবেগ বায়বীয় ব্যাপার, বাতাস পেলেই তা বাড়ে অন্য কিছুতে বাড়ে না

হুট করে প্রেম হয় কনজারভেটিভ পরিবার গুলোতে । ঐ সব পরিবারের মেয়েরা পুরুষদের সঙ্গে মিশতে পারে না, হঠাৎ যদি সুযোগ ঘটে যায় তাহলেই বড়শিতে আটকে গেল

মেয়েদের অনেক গুণের মধ্যে বড় গুণ হলো এরা খুব সুন্দর করে চিঠি লিখতে পারে। কথাবার্তায় নিতান্ত এলোমেলো মেয়েও চিঠি লেখায় গোছানো। মেয়েদের চিঠিতে আরেকটা ব্যাপার থাকে – বিষাদময়তা। নিতান্ত আনন্দের সংবাদ দিয়ে লেখা চিঠির মধ্যেও তারা জানি কী করে সামান্য হলেও দুঃখ মিশিয়ে দেয়। কাজটা যে তারা ইচ্ছা করে করে তা না। প্রকৃতি তাদের চরিত্রে যে বিষাদময়তা দিয়ে রেখেছে তাই হয়তো চিঠিতে উঠে আসে।

ভালোবাসা আর ঘৃণা আসলে একই জিনিস। একটি মুদ্রার এক পিঠে “ভালোবাসা” আরেক পিঠে লেখা ঘৃণা। প্রেমিক প্রেমিকার সামনে এই মুদ্রা মেঝেতে ঘুরতে থাকে। যাদের প্রেম যতো গভীর তাদের মুদ্রার ঘূর্ণন ততো বেশি। এক সময় ঘূর্ণন থেমে যায় মুদ্রা ধপ করে পড়ে যায়। তখন কারো কারোর ক্ষেত্রে দেখা যায় “ভালোবাসা” লেখা পিঠটা বের হয়েছে, কারো কারো ক্ষেত্রে ঘৃণা বের হয়েছে। কাজেই এই মুদ্রাটি যেন সবসময় ঘুরতে থাকে সেই ব্যবস্থা করতে হবে। ঘূর্ণন কখনো থামানো যাবে না।

দিনকাল পাল্টে গেছে, এখন আর মানুষ আগের মতো নাই।মওলানা ধরনের মানুষের দিকে এখন আর আগের মতো ভয়-মিশ্রিত শ্রদ্ধার চোখে কেউ তাকায় না। মওলানাও যে বিবেচনায় রাখার মতো একজন, কেউ তাও বোধহয় মনে করে না। ছল্টুফল্টু ভাবে।

মানুষের পছন্দ অপছন্দ দিয়েতো দুনিয়া চলে না, দুনিয়া চলবে তার নিজের পছন্দে

কিছু কিছু পুরুষ আছে যারা রূপবতী তরুণীদের অগ্রাহ্য করে একধরনের আনন্দ পায় । সচরাচর এরা নিঃসঙ্গ ধরনের পুরুষ হয় এবং নারী সঙ্গের জন্যে তীব্র বাসনা বুকে পুষে রাখে

মেয়েদের স্বভাবই হচ্ছে হালকা জিনিস নিয়ে মাতামাতি করা

বেশিরভাগ রূপবতী মেয়ে নকল হাসি হাসে। হাসার সময় ঢং করার চেষ্টা করে। তাদের হাসি হায়েনার হাসির মতো হয়ে যায়।

কিছু কিছু ব্যাক্তিগত দুঃখ আছে, যা স্পর্শ করার অধিকার কারোরই নেই।

আলোটুকু তোমায় দিলাম। ছায়া থাক আমার কাছে।

ভদ্র ছেলেদের জন্য মেয়েদের মনে কখনও প্রেম জাগে না, যা জাগে সেটা হল সহানুভূতি

অতিরিক্ত সুন্দর মেয়েদের কথা সহজে বিস্বাস করতে নেই, তাদের কথার শতকরা ৯০ ভাগই থাকে ছলনা

Humayun Ahmed Quotes Image  Quotes By Humayun Ahmed

Humayun Ahmed
Humayun Ahmed
Humayun
Humayun Ahmed
Humayun Ahmed
Bengali Quotes
Bangla Quotes
Humayun Ahmed Quotes
Humayun Ahmed Quotes
Humayun Ahmed Quotes
Quotes of Humayun Ahmed

View More Quotes >>

Join Our Facebook Page: https://www.facebook.com/banglazoom.me/

2 Comments

Add a Comment
  1. সুমন আহমেদ

    ভালো লাগলো

    1. আপনার কমেন্ট এর জন্য ধন্যবাদ।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *